স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কমিটি গঠন নিয়ে নানা তোড়জোড়

0
31

সারাবেলা রিপোর্ট: বিএনপির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ সংগঠন মেয়াদোত্তীর্ণ স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি ভেঙে দেওয়া হচ্ছে। নতুন কমিটি গঠনে তোড়জোড় শুরু করেছেন বিএনপির হাইকমান্ড। আগামীকাল মঙ্গলবার সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে নতুন কমিটির বিষয়ে মতামত নেবেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী সপ্তাহের মধ্যেই নতুন কমিটি দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। আর এজন্য দলের পদপ্রত্যাশী অনেক নেতা লবিং-তদবিরের পাশাপাশি বিভিন্ন নেতাদের কাছে দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছেন।

২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর প্রয়াত শফিউল বারী বাবুকে সভাপতি ও আবদুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েলকে সাধারণ সম্পাদক করে স্বেচ্ছাসেবক দলের পাঁচ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। মেয়াদ শেষের এক বছর পর ২০২০ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ১৪৯ সদস্যবিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। করোনায় আক্রান্ত হয়ে সংগঠনের সভাপতি শফিউল বারী বাবু মৃত্যুবরণ করলে সংগঠনের সিনিয়র সহ সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়। পরে এ বছরের ২০ এপ্রিল স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৫২ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয় এবং মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারমুক্ত করে সভাপতি করা হয়।

জানা যায়, নতুন কমিটি গঠনের বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের মতামত নেওয়ার জন্য আগামী মঙ্গলবার বৈঠক আহ্বান করা হয়েছে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান পৃথক-পৃথকভাবে কেন্দ্রীয় নেতাদের মতামত শুনবেন। এরপরই তিনি নতুন কমিটির ঘোষণা দেবেন। ওইদিন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ সুপার সিপ বাদ দিয়ে ৮২ জন নেতারা বক্তব্য শুনবেন। এর মধ্যে সহ সভাপতি ২৯ জন, যুগ্ম সম্পাদক ২০ জন, সহ সাধারণ সম্পাদক ৩০ জন রয়েছেন।

এর আগে ছাত্রদল, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের আগে সংগঠনের নেতাদের মতামত শুনেছেন তারেক রহমান। পরে সবার মতামত এবং বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের পরামর্শমতো তিনি এসব সংগঠনের নতুন কমিটি ঘোষণা করেছেন। এবারও সেই প্রক্রিয়া অনুসরণ করছেন তিনি।

বিএনপির একাধিক সূত্র জানিয়েছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরপরই তৃণমূল থেকে বিএনপিকে শক্তিশালী করতে উদ্যোগ নেয় দলের হাইকমান্ড। এ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে দলের বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনকেও ঢেলে সাজানোর কার্যক্রম শুরু করা হয়। এর অংশ হিসেবে ছাত্রদল, যুবদলের মতো সারাদেশে স্বেচ্ছাসেবক দলের ইউনিয়ন, থানা কমিটি গঠন সম্পন্ন করা হয়েছে। অনেক জেলা কমিটিও পুনর্গঠন করা হয়েছে। এবার ৬ বছরের মেয়াদোত্তীর্ণ কেন্দ্রীয় কমিটিকে ভেঙ্গে নতুন কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ত্যাগী, যোগ্য আর অভিজ্ঞদের দিয়ে এ কমিটি গঠন করা হবে বলে দলটির নীতিনির্ধারকরা জানিয়েছেন।

জানা যায়, ঈদের পরপরই এ কমিটি পুনর্গঠনের পরিকল্পনা থাকলেও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল পবিত্র হজ পালনে মক্কা-মদিনায় থাকায় এটা সম্ভব হয়নি। তিনি আগামী সোমবার দেশে ফিরবেন। নতুন কমিটিতে সংগঠনের ভিতর থেকে নেতৃত্ব নির্ধারণের একটি দাবি উঠলেও এবার সাবেক ছাত্রনেতাদের মধ্য থেকেও একজন নেতৃত্বে আসতে পারেন। আবার ঢাকা মহানগর নেতাদের থেকেও একজনকে আনা হতে পারে বলে গুঞ্জন রয়েছে। তবে কেন্দ্রীয় কমিটিতেও সাবেক ছাত্রনেতাদের অনেকে রয়েছেন নেতৃত্ব দেওয়ার প্রতিযোগিতায়।

পদ প্রত্যাশী: সভাপতি পদে সংগঠনের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, সিনিয়র সহ সভাপতি গোলাম সারোয়ার, সহ সভাপতি আনু মোহাম্মদ শামীম, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ।

সাধারণ সম্পাদকের পদে- বর্তমান কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসিন আলী, সহ-সাধারণ সম্পাদক সর্দার মো. নূরুজ্জামান, সহ-দপ্তর সম্পাদক নাজমুল হাসান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি এস এম জিলানী। এর বাইরে ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশিদ হাবিব, বজলুল করিম চৌধুরী আবেদ আলোচনায় আছেন। এসব নামের বাইরে ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি রাজীব আহসানের নামও শোনা যায়।

 

আজসারাবেলা/সংবাদ/জাই/রাজনীতি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here