হাকালুকিতে পাখি শিকারিদের বিষটোপে প্রাণ গেল ২৫০টি হাঁসের

0
28

সারাবেলা রিপোর্টঃ ‘পাখি শিকার না করার জন্য আমি সব সময় তাদের নিষেধ করতাম। এতে তারা ক্ষুদ্ধ হয়ে আমার এতগুলো হাঁস বিষ দিয়ে মেরে ফেলেছে’

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় পাখি শিকারিদের দেওয়া বিষটোপ খেয়ে এক খামারির ২৫০ হাঁসের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে উপজেলার তালিমপুর ইউনিয়নের হাকালুকি হাওরের পোয়ালা বিলে এই ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় খামার মালিক আলী হোসেন শুক্রবার বিকেলে উপজেলার তালিমপুর ইউনিয়নের পশ্চিম গগড়া গ্রামের ফয়জুর রহমানসহ পাঁচ জনের নাম উল্লেখ করে বড়লেখা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার তালিমপুর ইউনিয়নের পশ্চিম গগড়া গ্রামের আলী হোসেন ব্র্যাক ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে একটি হাঁসের খামার তৈরি করেন। খামারে তার ৪৫০টি হাঁস আছে। হাওরে তিনি ঘর তৈরি করে হাঁসগুলো পালন করেন। প্রায় সময় বিবাদীরা হাকালুকি হাওরে আসা অতিথি পাখি শিকার করে থাকে। হাঁসের খামার মালিক আলী হোসেন বিভিন্ন সময় বিবাদীদের পাখি শিকার করতে নিষেধ করেন।

বিবাদীরা তার নিষেধ না মানায় তিনি বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানান। এতে বিবাদীদের সঙ্গে তার বিরোধ সৃষ্টি হয়।

এরই জের ধরে বিবাদিরা শুক্রবার সকালে হাকালুকি হাওরের পোয়ালা বিলে আলী হোসেনের খামারের সামনে ধানের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে রাখে। সকালে হাঁসগুলো খাবারের উদ্দেশ্যে বেরিয়ে পড়ে। এসময় বিষ মেশানো ধান খেয়ে ঘটনাস্থলে ২৫০টি হাঁস মারা যায়।

খামার মালিক আলী হোসেন বলেন, আমি গরিব মানুষ। ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে হাঁসের খামার তৈরি করেছিলাম। কিন্তু পাখি শিকারিরা আমাকে নিঃস্ব করে দিয়েছে। ধানের সঙ্গে শিকারিদের দেওয়া বিষ খেয়ে আমার ২৫০টি হাঁস মারা গেছে। বাকি হাঁসগুলোর অবস্থা খারাপ। যেকোনো সময় মারা যেতে পারে। আমি তাদের প্রায় সময় পাখি শিকার না করার জন্য নিষেধ করতাম। এতে তারা ক্ষুদ্ধ হয়ে আমার এতগুলো হাঁস বিষ দিয়ে মেরে ফেলেছে। আমি থানায় অভিযোগ দিয়েছি। আমি তাদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।

বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার বলেন, বিষটোপ খেয়ে এক খামার মালিকের ২৫০ হাঁস মারা গেছে বলে অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বড়লেখা উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম শুক্রবার রাতে ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, মূলত হাওরে পাখি শিকারের জন্য বিষটোপ দিয়ে থাকে। আবার হাঁস অনেকের ক্ষেতের জমির ফসল নষ্ট করে ফেলে যার কারণে কিছু লোক আছে বিষ দিয়ে থাকে। আমি শুনেছি আজ দুপুরে এক খামারির কিছু হাঁস বিষ খেয়ে মারা গেছে।

তিনি বলেন, বিষ খেয়ে যদি কোনো হাঁস মারা যায় তাহলে সেটি রাজধানীর মহাখালী রাসায়নিক কেন্দ্রে পাঠিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হয়। সেখানে আমাদের কিছুই করার থাকে না। মূলত বিষয়টি থানা পুলিশের।

আজসারাবেলা/সংবাদ/যুবায়ের/সারাদেশ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here