জায়েদের অভিযোগে প্রযোজক সমিতির কার্যক্রম বাতিল

0
40

সারাবেলা ডেস্ক : চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক, অভিনেতা ও প্রযোজক জায়েদ খান বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতি ২০১৯-২১ মেয়াদি নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তুলেছিলেন। সেই অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

তাই প্রযোজক সমিতির সুষ্ঠু নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত সংগঠন পরিচালনার জন্য এর কার্যনির্বাহী পরিষদের কমিটি বাতিল করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব খন্দকার নুরুল হককে প্রশাসক নিয়োগ দিয়েছে মন্ত্রণালয়।

আগামী ১২০ দিনের মধ্যে দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনাসহ একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে নির্বাচিত কমিটির কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করবেন তিনি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সংগঠনটির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু এবং সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির সংঘবিধি ও সংঘস্মারকের ধারা ৫(৫) লঙ্ঘনক্রমে এবং মহামান্য হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে সমিতির নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করেছেন, বিষয়টি তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

গত বছরের জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির নির্বাচন।

সম্প্রতি বাংলাদেশ প্রযোজক পরিবেশক সমিতিতে জায়েদ খানের সদস্যপদ সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়। সেসময় সংগঠন থেকে দুই দফা তাকে প্রযোজক সমিতির স্বার্থবিরোধী কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগে চিঠি দেওয়া হয়। সেসব চিঠির জবাবও দিয়েছিলেন জায়েদ। সেই জবাব তুষ্ট করতে পারেনি সমিতির নেতাদের। তারা বলছেন, জায়েদ খান প্রযোজকদের স্বার্থে আঘাত করেছেন।

জায়েদ খান সেসময় জানান, তাকে উদ্দেশ্যপ্রনোদিতভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। তিনি সত্য উদঘাটনের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বরাবর আবেদন করেন। পরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ দেন। মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, তদন্ত কর্মকর্তা তদন্ত শেষে প্রতিবেদন প্রেরণ করেছেন। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে জায়েদ খান জানান, মিথ্যা এবং অন্যায়ভাবে তার সদস্যপদ বাতিল করায় তিনি ন্যায় বিচার চেয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন করেছিলেন। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে তদন্তে তিনি নির্দোষ প্রমানিত হয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here